লিন্ডসে লোহান কি ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেছেন ?

417
Lindsay Lohan,
হলিউডের সাবেক অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহান ইসলাম ধর্মগ্রহণ করেছেন

ঢাকা,মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারি, ২০১৭ :আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে হলিউড অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহান ইসলাম ধর্মগ্রহণ করেছেন। লিন্ডসে লোহান তার ব্যক্তিগত টুইটার এবং ইন্সটাগ্রাম একাউন্ট থেকে নিজের সব ছবি সরিয়ে ফেলেছেন।গত বছর ১টি শিশু সেন্টারে কোরআন শরীফ হাতে লিন্ডসে লোহানের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।সেসময় প্রচার হয় হলিউডের বিখ্যাত অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহান ইসলাম গ্রহণ করতে যাচ্ছেন! লোহান তখন ডেইলিমেল অনলাইনকে বলেছিলেন, সৌদি আরবের আমার এক খুব ঘনিষ্ঠবন্ধু আমাকে এই কোরআন শরীফ উপহার দিয়েছে। এখন আমি এটা পড়ার ও শেখার চেষ্টা করছি।লিন্ডসে লোহান তখন থেকেই ইসলাম ও কুরআন নিয়ে চর্চা করে আসছেন। গত বছরের শুরুর দিকে, তিনি কুরআন থেকে একটি উদ্ধৃতি ইন্সটাগ্রামে আপলোড করেছিলেন কিন্তু শীঘ্রই তা আবার মুছে ফেলেন

Lindsay Lohan
হলিউড অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহানের আগের ছবি

হলিউড মডেল, গায়িকা ও অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহানের হাতে পবিত্র কুরআন দেখে সবার এমনই ধারণা পোষণ করছে যে, তিনি খুব শীঘ্র ইসলাম ধর্ম  গ্রহন করতে যাচ্ছেন। গতবছর নিউইয়র্কের একটি শিশু সেন্টারে কমিউনিটি সার্ভিসের প্রথম দিনে তাকে পবিত্র কোরআন হাতে তাকে দেখা গিয়েছিল। হলিউড মডেল, গায়িকা ও অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহান পবিত্র কুরআন বুকে নিয়ে ব্রুকলিনের একটি শিশু কেন্দ্র থেকে নামতেই মিডিয়া তাকে ঘিরে ধরে। তার পবিত্র কোরআন বহনের এ ফটোগ্রাফ ইতোমধ্যে বিপুল আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। এ নিয়ে বিশ্বব্যাপী জল্পনা শুরু হয়েছিল যে, ক্যাথলিক বংশোদ্ভূত অভিনেত্রী ইসলামে দীক্ষিত হচ্ছেন। তবে এটি সংবাদের শিরোনাম হলেও এ ব্যাপারে তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যাচ্ছিল না। অবশেষে মুখ খুললেন লিন্ডসে। The Dan utonake দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘হ্যাঁ, আমি নিয়মিত পবিত্র কোরআন অধ্যয়ন করছি।‘আমি সত্যিই ইসলাম ও কুরআন শেখার জন্য উন্মুখ হয়ে আছি।

Lindsay Lohan
হলিউড অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহানের আগের ছবি

বিশ্বব্যাপী ইসলামী জঙ্গিবাদ নিয়ে এমন একটি কঠিন মুহূর্তে কোরআন হাতে তার এমন ফটোগ্রাফে আমেরিকায় নানা কানাঘুষা চলতে থাকে। কৌতূহল সবার মনে আসলে অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহান কি সত্যিই ইসলাম গ্রহণ করতে যাচ্ছেন ?  তিনি বলেন, আমার কাছে থাকা পবিত্র কোরআনকে ভিন্নভাবে নিচ্ছে আমেরিকাবাসী। আমরা সবাই একটি জিনিসে বিশ্বাস করি আর সেটা হলো ঈশ্বর বা আল্লাহ বা সৃষ্টিকর্তা। লিন্ডসের এ বিশ্বাসের পরিবর্তনে তিনি একা নন, তার ছোট বোনও আছেন যিনি বৌদ্ধ ধর্ম গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেন, আমরা সবাই একই ধারনায় বিশ্বাসী আর সেটা হলো ঈশ্বর বা আল্লাহ বা সৃষ্টিকর্তা। যাই হোক এটা ব্যক্তিগতভাবে ভিন্নও হতে পারে। ‘আমার বোন বৌদ্ধ ধর্মে দীক্ষিত হলেও সে আমার কাছ থেকে অন্যান্য বিষযে শিখতে আগ্রহী। লোহান বলেন, আমি মনে করি উদারমনস্ক হওয়া ভাল।। লিন্ডসে তার পরবর্তী পদক্ষেপ নিলে এবং সম্পূর্ণরূপে ইসলামে ধর্মান্তরিত হলেও এটিই প্রথম ঘটনা নয় কারন এর আগেও একাধিক সেলিব্রিটি ইসলাম গ্রহণ করেছেন। এদের মধ্যে আছেন, জেনেট জ্যাকসন, ক্যাট ইস্টেভেনস, জেমিমা খান এবং ক্যাসিয়াস ক্লে। লোহান জানান, তিনি পবিত্র কোরআন পুরোপুরি অধ্যয়ন করতে চান। আমি এখনো শেষ করতে পারিনি। এটা শেষ করা কয়েক দিনের কাজ নয়। এতে অনেক দিন লেগে যেতে পারে।

Lindsay Lohan
হলিউড অভিনেত্রী লিন্ডসে লোহানের আগের ছবি

লিন্ডসে লোহান ইতোপূর্বে তার বাজে আচরণের জন্য সমালোচিত হয়েছেন বহুবার। খাপছাড়া জীবনযাপনে অভ্যস্থ এ হলিউড নায়িকা এখন মদ ও ড্রাগ থেকে নিজেকে গুটিয়ে রেখেছেন । অ্যালকোহল ও ড্রাগে আসক্ত লিন্ডসে লোহান বর্তমানে বিভিন্ন আধ্যাত্মিকতার প্রতি কৌতূহল দেখাচ্ছেন। তিনি তার আধ্যাত্মিকতার ছোঁয়ায় পাল্টে ফেলেছেন তার জীবন। মিন গার্লস খ্যাত এই তারকা ২০১০ সালে মাতাল অবস্থায় গাড়ি চালানোর জন্য ১৪ দিন কারাভোগ করেন। লোহান জানান,ইসলাম ধর্মের মাধ্যমে আধাত্মিক জগতের ছোঁয়া খুঁজছেন তিনি। হয়তো পেয়েও যেতে পারেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আধাত্মিকতার মাধ্যমে আমি একটি রুম থেকে প্রত্যেকের কথোপকথন শুনতে পারি। আমি সবকিছু শুনি এবং সবকিছু লক্ষ্য করি যাতে তাই আমি আমার মস্তিষ্ককে আবদ্ধ করে নিজেকে শিক্ষা দিতে পারি। উল্লেখ্য ২০১২ সালে লোহান লস এঞ্জেলেস বেপরোয়া গাড়ি চালানোর অপরাধে বিচারে দোষী সাব্যস্ত হন। বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর মামলার প্রভেশন কাটানোর পর লিন্ডসে লন্ডনে পাড়ি জমান। সেখানে ওয়েস্ট অ্যান্ড প্রোডাকশনের ‘স্পিড দ্য প্লো’-তে গত বছর কাজ করেন। এর শাস্তি হিসিবে ব্রুকলিনের একটি শিশু সেন্টারে ১২৫ ঘন্টা কমিউনিটি সার্ভিসের কাজ করতে হয়। এরপর থেকেই তার কোনও সাড়া শব্দ পাওয়া যাচ্ছিল না। লিন্ডসে সেখানে খুব বেশি বাইরেও যেতেন না । আর এখন তিনি বেশিরভাগ সময় বাড়িতে থাকছেন এবং রান্নাবান্না করে সময় কাটাচ্ছেন। সাপ্তাহিক ছুটির দিনে তিনি মোনোকোতে গিয়ে বসে থাকেন। ১৯৯৮ সালে হলিউড সিনেমায় অভিষেকের পর থেকে বেশ কয়েকটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি। এছাড়া মডেল ও গায়ক হিসেবেও তার খ্যাতি ও পরিচিতি রয়েছে। ৩০ বছর বয়সী এ অভিনেত্রী এখন লন্ডনেই বেশি সময় কাটাতে চান। হলিউডে তিনি ফিরছেন না কারণ, হলিউডে কাজ করার তার কোন অগ্রহ নেই।