চাকরির পরীক্ষা দিয়ে নিরাশ হয়ে ফিরছেন? দেখুন কোথায় ভুল হচ্ছে আপনার

235

onlinesangbad,.1.13

ঝুড়ি ঝুড়ি চাকরির পরীক্ষা তো দিচ্ছেন কিন্তু নিরাশ হয়ে বাড়ি ফিরে আসছেন। টাকা খরচ করে পড়তেও যাচ্ছেন কিন্তু কিছুতেই পাচ্ছেন না চাকরি। কখনও ভেবে দেখেছেন আপনার মধ্যেকার গলতিগুলো? ভেবে দেখুন নিচের কথাগুলি কখনও ভুল বশতও বলে ফেলেননি তো ইন্টারভিউয়ের সময়? এক ঝলকে দেখে নিন…

জানার জন্য পড়ুন
যখন পরতে যান তখন পড়াটাকে উপভোগ করুন। কখনও পরীক্ষার জন্য পড়বেন না। তাতে আদতে কোনও লাভই হবে না আপনার। নিজের লাভের জন্য একটু ভেবেই নিন না, আপনি জাস্ট একটা বই পড়ছেন যেখান থেকে কিছু জানতে পারবেন আপনি।

ঠান্ডা মাথায় পরীক্ষা দিন
পরীক্ষার আগের দিন খুব ভাল করে ঘুমান। একদম রাত পর্যন্ত জেগে থাকবেন না। দরকার হলে প্রিয়জনের সঙ্গে কথা বলুন। দেখবেন মন স্থির থাকবে। মন স্থির থাকলেই অনায়াসেই পরীক্ষা ভাল হবে আপনার।

মাধ্যমিক বা উচ্চমাধ্যমিকের সঙ্গে মিশিয়ে ফেলবেন না
এই পরীক্ষাকে মাধ্যমিক বা উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার সঙ্গে গুলিয়ে ফেলবেন না। কারণ এই পরীক্ষা আপনি পাশ করতে যাচ্ছেন না দিতে যাচ্ছেন। তাই খুব বেশি চাপ নেবেন না। মাথা ঠান্ডা রেখে পরীক্ষা দিন।

উপভোগ করুন বিষয়টিকে
পরীক্ষাটিকে খুব বেশি সিরিয়াসলি না নিয়ে উপভোগ করুন। জানি এটা খুবই কঠিন কিন্তু ভাবুন না, যে আপনি সেরফ উপভোগ করার জন্য এই পরীক্ষাটি দিচ্ছেন। যখন পড়বেন তখনও উপভোগ করে পড়ুন। পরীক্ষায় পাশ করার জন্য পড়লে কোনও লাভই হবে না আপনার।

ধৈর্য্য হারাবেন না
ইন্টারভিউয়ের সময় ধৈর্য্য হারাবেন না। ধৈর্য্য হারিয়ে ফেললে ঘাবড়ে যাবেন। তাই ধীরে সুস্থে আস্তে আস্তে মাথা ঠান্ডা রেখে প্রশ্নের উত্তর দেবেন।

ফরমাল জামা পড়ে যাবেন
ওই দিন অবশ্যই ফরমাল জামা পড়ে যাবেন। ছেলেরা ফুল শার্ট ও ট্রাউজার এবং মেয়েরা সালোয়ার অথবা কুর্তি পড়তে পারেন। তবে অবশ্যই রঙের কথা মাথায় রাখবেন। এক রঙের জামা পড়ার চেষ্টা করবেন।

মুখে সব সময় হাসি রাখবেন
মুখে হাসি যেন সারাক্ষণ থাকে। সেই দিকে ঠিক ঠাক নজর রাখবেন। যতক্ষণ ওই অফিসে থাকবেন ততক্ষণ মুখে প্লাষ্টিক হাসি লাগিয়েই থাকবেন। বিরক্তি ভাব কখনই প্রকাশ করবেন না।

ইন্টারভিউয়ের বিষয় নিয়ে সজাগ থাকবেন
যে বিষয়ে ইন্টারভিউ দিতে গিয়েছেন সেই বিষয় নিয়ে যথেষ্ট সজাগ থাকবেন। বিষয় যদি সঠিকভাবে জানা না থাকে তাহলে সঠিক উত্তর দিতে পারবেন না। তাই আগে থেকে বিষয় সম্পর্কে লেখা পড়া করে নেবেন।

পজিটিভ চিন্তাভাবনা
যখন পরীক্ষা দেবেন বা প্রস্তুতি নিচ্ছেন তখন সব সময় নিজের মনকে বলবেন আমি পারব। পারব ভেবে এগোলে অনেক বাধাই অতিক্রম করা যায়। কখনও এটা মাথায় আসবেন না যে আপনার সঙ্গে লক্ষ লক্ষ মানুষ পরীক্ষা দিচ্ছে তারা আপনার থেকে অনেক ভাল হতে পারে। সেখানে আপনি কোনও জায়গাই পাবেন না। এই চিন্তা করলে কোনও লাভই হবে না। নিজের লাভ কিসে হবে সেই কথা ভাবুন। আর উপভোগ করে পরীক্ষা দিন। কেন হবে না ঠিক হবে!