আজান বিতর্কে ন্যাড়া হলেন গায়ক সোনু নিগম

565
sonu nigam
ভারতের গায়ক সনু নিগম
ঢাকা,বুধবার ১৯ এপ্রিল,২০১৭: ভারতের গায়ক সনু নিগম মাইকে আজান দেয়ার বিরুদ্ধে মন্তব্য করে বিতর্কের ঝঢ় তুলেছেন। গত সোমবার সকালে সনু নিগম টুইটারে লেখেন, প্রতিদিন ভোরে আজানের ‘কর্কশ’ শব্দের কারণে আমার ঘুম ভেঙে যায়। এজন্য আমি বিরক্ত বোধ করি। আজানের শব্দে ঘুম ভেঙে যাওয়ার পর তিনি টুইটারে একের পর এক মন্তব্য পোস্ট করতে থাকেন সনু নিগম। সেখানে তিনি লেখেন- ‘আমি মুসলিম না। তাহলে কেন আজানের শব্দে আমার ঘুম ভাঙানো হবে ?  টুইটে সনু লিখেছেন, ‘ঈশ্বর সবার মঙ্গল করুন। আমি তো মুসলিম নই। তবে আমাকে কেন সকাল বেলা আজান শুনে ঘুম থেকে উঠতে হবে? ‘অনিচ্ছা সত্ত্বেও প্রতিদিন আজানের শব্দে আমার ঘুম ভেঙে যায়। আরকেটি টুইটে তিনি লেখেন,মোহাম্মদের সময় তো বিদ্যুৎ ছিল না। কিন্তু এখন মাইক্রোফোনের আওয়াজে আজানে সুর অনেক কর্কশ লাগে। সনু তার টুইটে লেখেন আজানের ধ্বনিকে ‘জোর করে চাপিয়ে দেয়া হয়েছে।সনু আজানকে সকালবেলা ঘুম ভাঙার কারণ হিসেবে তুলে ধরেছেন। সনু আজান দেয়াকে জুলুম হিসেবে আক্ষায়িত করেন।
মসজিদের আজানে ঘুম ভেঙে যাওয়ার প্রতিবাদ করে সোশ্যাল মিডিয়াতে যিনি ঝড় তুলেছেন, সেই বলিউড গায়ক সোনু নিগম তার বিরুদ্ধে জারি করা ফতোয়ার প্রতিবাদে গতকাল বুধবার নিজের মাথার চুল কামিয়ে ফেলেছেন। এর আগে পশ্চিমবঙ্গের এক মুসলিম ধর্মীয় নেতা, সৈয়দ শাহ আতেফ আলি আল কাদেরি ঘোষণা করেছিলেন, যে সোনু নিগমের মাথা কামিয়ে পুরনো জুতোর মালা তার গলায় ঝুলিয়ে সারা ভারত ঘোরাতে পারবে তাকে তিনি ১০ লক্ষ রুপির ইনাম দেবেন। সেই খবর চোখে পড়ার পর গত সোমবার সকালে সোনু নিগম নিজেই আবার টুইট করেন,তিনি তার টুইটে লেখেন “আজ বেলা দুটোয় আলিম আমার বাড়িতে এসে মাথা কামিয়ে দেবেন। মৌলবি, তোমার ১০ লাখ তৈরি রাখো।”সেই মাথা কামানোর ঘটনা দেখার জন্য তিনি সংবাদমাধ্যমকেও তার বাড়িতে আসার আমন্ত্রণ জানান।যেমন কথা, তেমন কাজ। ঠিক বেলা দুটোয় আলিম হাকিম আসেন সোনু নিগমের মুম্বাইয়ের বাড়িতে এবং মিডিয়ার ক্যামেরার সামনেই তাকে পুরো ন্যাড়া করে দেন।
Priyanka Chopra
বলিউডের অন্যতম সেরা অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া
আজান নিয়ে ভারতের জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী সনু নিগামের বিতর্কিত মন্তব্যের সমালোচনা এখন তুঙ্গে। সনু নিগম আজানের শব্দ নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করে টুইট করায়,বিস্ময় প্রকাশ করেছেন বলিউডের একাধিক তারকা।
এরই মাঝে আলোচনায় এসেছে বলিউডের অন্যতম সেরা অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার আজান নিয়ে একটি মন্তব্য, যেখানে তিনি আজান ও আজানের ধ্বনির প্রশংসা করেছেন। সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে প্রিয়াঙ্কা বলেন, ‘প্রতি সন্ধ্যায় আমি আজানের জন্য আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করি। কোনো দিনই আমি আজান না শুনে থাকতে পারি না। কারণ আজানে আছে একটা স্বর্গীয় সৌন্দর্য।’সম্প্রতি প্রিয়াংকা চোপড়া ভুপালে একটি ছবির শুটিং করতে গিয়েছিলেন। সেখানকার তার অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরতে গিয়ে প্রিয়াংকা বলেন, ‘ভুপালে সবচেয়ে আনন্দের সময়টা আমার কাছে ছিল আজানের সময়। যেটার জন্য আমি আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করি। সন্ধ্যায় আমি বারান্দায় বসি। কাজ শেষ হয়ে যায়। পুরো ভুপালে সব মসজিদ থেকে আজানের সুর আসে। আমার বারান্দা থেকে ছয়টি মসজিদ থেকে আজান শোনা যায়। ওই পাঁচ মিনিট আমার কাছে খুব ভালো লাগে। সূর্য ডুবতে থাকে। তখন আজানের সুর ভেসে আসে। তখন বেশ শান্তির একটা পরিবেশ তৈরি হয়। ওইটাই আমার দিনের সবচেয়ে প্রিয় সময়।’উল্লেখ্য ২০০০ সালে মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতা জিতেন প্রিয়াংকা চোপড়া। এরপর থেকেই বলিউডের শীর্ষে আছেন ওই বিশ্ব সুন্দরী। তবে এখন কেবল বলিউড নয়, হলিউডেও ছড়িয়ে পড়েছে প্রিয়াংকার জনপ্রিয়তা।
Pooja Bhatt
ভারতের খ্যাতনামা অভিনেত্রী ও চলচ্চিত্র প্রযোজক পূজা ভাট
ভারতীয় গায়ক সনু নিগম আজান নিয়ে মন্তব্য করায় তার জবাবে ভারতের খ্যাতনামা অভিনেত্রী ও চলচ্চিত্র প্রযোজক পূজা ভাট বলেন,আজানের শব্দ আমার ভাল লাগে। প্রতিদিন ভোরে আজানের শব্দে আমার ঘুম ভেঙে যায় এবং এটি আমার কাছে খুব ভালো লাগে। টুইটার বার্তায় পূজা আরো বলেন, বানদারার ফ্লাটের নীরব গলিতে প্রতি সকালে চার্চের ঘণ্টা ধ্বনি এবং আজানের শব্দে আমার ঘুম ভাঙে।ঘুম ভাঙার পর ভারতীয় চেতনাকে সালাম জানাই এবং তার স্মরণে আগরবাতি জ্বালাই।আজানের ধ্বনি আমার কাছে শুধু ভাল লাগে তা নয় সুমধুরও লাগে। আজানের সুমধুর শব্দে ঘুম ভাঙার পর ভোরের স্নিগ্ধ বাতাসে হাটাহাটি করি,হালকা ব্যায়াম করি। ভোরবেলা চারিদিকের পরিবেশ মনোমুগ্ধকর থাকে।সে সময় আমি একটা স্বর্গীয় পরিবেশ অনুভব করি।আজানের শব্দকে তথা আজানকে আমি সম্মান করি শ্রদ্ধা করি।
হিন্দু ধর্মাবলম্বী ভক্তরাও সনুকে ত্যাগ করার ঘোষণা দিয়েছেন টুইটারে। অনেকে বলেছেন, সনুর ক্ষমা চাওয়া উচিত। কেউ বলেছেন, তার অন্য ধর্মের প্রতি সহিষ্ণু হওয়া উচিত।
আজান নিয়ে প্রিয়াঙ্কার সেই মন্তব্য,

এই ভিডিও লিংকে: https://www.youtube.com/watch?v=Cc1lo0bfKOo&feature=youtu.be&t=9